কয়লা প্রকল্পগুলি অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বৃক্ষ রোপনের মাধ্যমে দ্রুত বনসৃজন করছে

খোলা মুখ কয়লা খনি এলাকায় মাটি দিয়ে বুজিয়ে সেখানে ঘন বনাঞ্চল তৈরি করা হচ্ছে, এর মাধ্যমে পরিবেশে ভারসাম্য বজায় থাকবে।  

/
36599 views
9 mins read

খনি থেকে কয়লা উত্তোলনের পর সংশ্লিষ্ট এলাকার জমি অনুর্বর হয়ে পড়ে বলে একটি ধারণা রয়েছে। এই ভাবনা থেকে সরে এসে কোল ইন্ডিয়া লিমিটেড (সিআইএল) সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলির জমির মান পুরুদ্ধার যেমন  করছে , সেখানে সবুজের পরিমাণও বৃদ্ধি করছে। খোলা মুখ কয়লা খনি এলাকায় মাটি দিয়ে বুজিয়ে সেখানে ঘন বনাঞ্চল তৈরি করা হচ্ছে, এর মাধ্যমে পরিবেশে ভারসাম্য বজায় থাকবে।

এধরণের একটি প্রকল্প হল জয়ন্ত ওপেনকাস্ট কোল প্রোজেক্ট। মধ্যপ্রদেশের সিংগ্রাউলি জেলায়  পরিত্যাক্ত কয়লা খনিটিকে আবারও আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। সেখানে সবুজের পরিমাণ বাড়ানো হচ্ছে। কোল ইন্ডিয়ার সহযোগী সংস্থা নর্দান কোল ফিল্ড এই প্রকল্পের কাজ করছে। কয়লা মন্ত্রকের প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী উপগ্রহ মারফৎ পাওয়া ছবি থেকে দেখা যাচ্ছে, সংশ্লিষ্ট এলাকায় কয়লা তোলার আগে যত গাছপালা ছিল,

এখন তার থেকে বেশি গাছপালা রয়েছে। ১৯৭৫ – ৭৬ সালে ঐ অঞ্চলের কয়লা উত্তোলনের কাজ শুরু হয়। প্রায় ৩২০০ হেক্টর এলাকা থেকে ২ কোটি ৫০ লক্ষ টন কয়লা প্রতি বছর উত্তোলন করা হতো। এর পর সেই কয়লা উত্তরপ্রদেশের শক্তিনগরে এনটিপিসি-র তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে পাঠানো হত।

মধ্যপ্রদেশ রাজ্য বন বিকাশ নিগম লিমিটেডের সহযোগিতায় এখন পরিত্যাক্ত খনি অঞ্চলে জাম, জঙ্গল জিলিপি, তিল, মহুয়া, সুবাবুল, বেল, নিম, বাঁশ, বোগন ভিলিয়া, গুলমোহর ইত্যাদি গাছের চারা ঐ এলাকায় রোপন করা হয়েছে।

বর্তমানে যে সব কয়লা প্রকল্পগুলি রয়েছে, তাদের জন্য খনি থেকে কয়লা উত্তোলনের পর সংশ্লিষ্ট অঞ্চলকে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়া বাধ্যতামূলক। ঐ অঞ্চলে খনি এলাকায় ভরাট করে সেখানে বনসৃজন করতে হবে। যাতে পরিবেশের ভারসাম্য বজায়

থাকে।


News Source PIB

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!
Don`t copy text!