শ্রী অপূর্ব চন্দ্র তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের সচিব হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছে

নেক্সট জেনারেশন সিকোয়েন্সিং বা এনজিএস এবং ব্রিকস কনসোর্টিয়ামের মাধ্যমে কোভিড-১৯ সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে সমীক্ষা চালানো হচ্ছে।

//
33929 views
4 mins read

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের অধীন জৈব প্রযুক্তি বিভাগ ব্রিকস গোষ্ঠী ভুক্ত দেশ গুলির সহযোগিতায় সার্স-কোভ-টু বিষয়ে পর্যবেক্ষণ শুরু করেছে। বিশেষত যক্ষা রোগীদের ওপর করোনার প্রভাব নিয়ে।   

নেক্সট জেনারেশন সিকোয়েন্সিং বা এনজিএস এবং ব্রিকস কনসোর্টিয়ামের মাধ্যমে কোভিড-১৯ সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে সমীক্ষা চালানো হচ্ছে। এই কনসোর্টিয়াম জিনোমিক ডেটাকে ত্বরান্বিত করবে যা ক্লিনিক্যাল এবং জন স্বাস্থ্য গবেষণা ও নজরদারি ক্ষেত্রে কাজে লাগানো হবে।

এই কাজে ভারতীয় বিজ্ঞানীদের মধ্যে রয়েছেন পশ্চিমবঙ্গে অবস্থিত ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব বায়োমেডিকেল জিনোমিক্সের অধ্যাপক অরিন্দম মিত্র, সৌমিত্র দাস এবং ডক্টর নিধান কুমার বিশ্বাস। এছাড়াও রয়েছেন সেন্টার ফর ডিএনএ ফিঙ্গারপ্রিন্ট এন্ড ডায়াগনস্টিকস-এর অধ্যাপক অশ্বিন দালাল, ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স- এর ডক্টর মোহিত কুমার জলি। ব্রিকস গোষ্ঠী ভুক্ত দেশ গুলির বিজ্ঞানীদের মধ্যে রয়েছেন ব্রাজিলের ন্যাশনাল ল্যাবেরটরি ফর সাইন্টিফিক কম্পিউটেশন-এর ডক্টর আনা টেরেসা রিবেরিও ডি  ভাসকনসেলস, রাশিয়ার স্কোলকোভো ইনস্টিটিউট অফ সাইন্স এন্ড টেকনোলজির অধ্যাপক জর্জি বাজিকিন, চীনের বেইজিং ইনস্টিটিউট অব জেনোমিক্সের অধ্যাপক মিঙকুন লি এবং দক্ষিণ আফ্রিকার ইউনিভার্সিটি অফ কোয়াজুলু – নাটাল- এর বিজ্ঞানী অধ্যাপক টুলিও ডি অলিভেরা।

জৈব প্রযুক্তি বিভাগের সচিব ডক্টর রেনু স্বরুপ মন্তব্য করেছেন যে, এই বিভাগ ব্রিকস ভুক্ত দেশ গুলির বিজ্ঞানীদের সঙ্গে সহযোগিতা করে সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।


News Source :  PIB

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!