Live

২০২১-২২ অর্থনৈতিক সমীক্ষার মূল বিষয় ‘কর্মতৎপরতা’

//
85825 views
7 mins read

এ বছরের অর্থনৈতিক সমীক্ষার মূল বিষয় ‘কর্মতৎপরতা’। কোভিড-১৯ মহামারীর প্রেক্ষিতে অর্থনীতির উপর নেতিবাচক প্রভাবের মোকাবিলা করতে ভারতের গৃহীত পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে যা প্রতিফলিত হয়েছে। কেন্দ্রীয় অর্থ ও কর্পোরেট বিষয়ক মন্ত্রী শ্রীমতী নির্মলা সীতারমন আজ সংসদে ২০২১-২২ অর্থবর্ষের অর্থনৈতিক সমীক্ষা পেশ করেন। তিনি জানান, বিভিন্ন নীতি বাস্তবায়নে কিছু কিছু ফাঁক থেকে গেছে, কিন্তু আজকের দিনে কর্মতৎপর হয়ে ওঠা অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক। আজ বিভিন্ন বিষয়ে নিরন্তর নজরদারি চালানো হচ্ছে। পণ্য পরিষেবা কর সংগ্রহ, ডিজিটাল পদ্ধতিতে লেনদেন, কৃত্রিম উপগ্রহের মাধ্যমে ছবি তোলা, বিদ্যুৎ উৎপাদন, এক স্থান থেকে অন্য স্থানে পণ্য পরিবহণ, অন্তর্বর্তী ও বৈদেশিক ব্যবসা-বাণিজ্য, বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নের মতো তথ্য বিবেচনা করে এই সমীক্ষা করা হয়েছে।

অর্থনৈতিক সমীক্ষার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হ’ল – চূড়ান্ত অনিশ্চয়তার মধ্যে এই সমীক্ষা তৈরি করা হয়েছে। কোভিড-১৯ মহামারীর একের পর এক ঢেউ এসে অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। কিন্তু, প্রযুক্তির পরিবর্তন, উপভোক্তাদের চাহিদা, সরবরাহ-শৃঙ্খল, ভূ-রাজনীতি, জলবায়ু পরিবর্তনের মতো বিভিন্ন বিষয়সমূহ যথেষ্ট আশার সঞ্চার করেছে, যা এই সমীক্ষায় স্থান পেয়েছে। নিয়ন্ত্রণ প্রত্যাহার, সহজ পদ্ধতিতে বিভিন্ন প্রক্রিয়ার বাস্তবায়ন, বেসরকারিকরণ, বিদেশি মুদ্রা ভান্ডার সমৃদ্ধ হওয়া, মুদ্রাস্ফীতি, সকলের জন্য আবাসন, পরিবেশ-বান্ধব প্রযুক্তি, ঋণ খেলাপি বিধি, দরিদ্র মানুষের স্বাস্থ্য বীমা, আর্থিক অন্তর্ভুক্তি, পরিকাঠামো খাতে ব্যয়, প্রত্যক্ষ সুবিধা হস্তান্তর ইত্যাদির মতো বিভিন্ন বিষয় বিবেচনা করে সমীক্ষা তৈরি করা হয়েছে।

সমীক্ষার মুখবন্ধে ১৯৫০-৫১ সালে প্রথম সমীক্ষা থেকে বর্তমান সমীক্ষা পর্যন্ত যে বিবর্তন হয়েছে, তাও স্থান পেয়েছে। এই সমীক্ষায় ভাষা, পরিসংখ্যান এবং অংশগ্রহণের মতো বিভিন্ন বিষয় উল্লেখ রয়েছে। এর আগে অর্থনৈতিক সমীক্ষা ও আর্থিক বাজেট একদিনে পেশ করা হ’ত না। কিন্তু এখন সমীক্ষার নথি কেন্দ্রীয় বাজেটের সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে। আগে সমীক্ষা দুটি পর্বে প্রকাশিত হ’ত এবং বছরের পর পর বছর এই সমীক্ষার কলেবর বৃদ্ধি পেয়েছে। এ বছর অর্থনৈতিক সমীক্ষা একটি পর্বে তৈরি করা হয়েছে। পরিসংখ্যানের জন্য পৃথক একটি সূচির ব্যবস্থা করায় অর্থনৈতিক সমীক্ষা থেকে বস্তুনিষ্ঠ তথ্য পাওয়া সম্ভব হবে। বিভিন্ন ক্ষেত্র থেকে প্রাপ্ত তথ্যের নিরিখে আগামী দিনে অর্থনৈতিক সমীক্ষা আরও কিছু আর্থ-সামাজিক তথ্য যুক্ত করা সম্ভব হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এবারই প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ এবং ভূ-স্থানিক ছবি ব্যবহার করে অর্থনীতির বিভিন্ন বিষয়ের মূল্যায়ন করা হয়েছে। এর মধ্যে নগরায়ন, পরিকাঠামো, পরিবেশের উপর প্রভাব, কৃষি কাজে ব্যবহৃত পন্থা-পদ্ধতি উল্লেখযোগ্য।

 

 

 


 © Press Information Bureau

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!