World News

World News: Get Latest and breaking news from World. Today's Top International News Headlines, news on politics, Business, Crime, Sports and Current Affairs.

///

মুম্বাইয়ে অবতরণ করেছে উক্রেন থেকে ১৮২ জন ভারতীয় নাগরিককে নিয়ে সপ্তম উদ্ধারকারী বিমান

অপারেশন গঙ্গা’র অঙ্গ হিসাবে ইউক্রেন থেকে ১৮২ জন ভারতীয় নাগরিককে নিয়ে সপ্তম উদ্ধারকারী বিমান দেশে ফিরেছে।বিশেষ এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেস বিমানটি আজ সকালে মুম্বাইয়ে ছত্রপতি শিবাজী মহারাজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।…

নিষেধাজ্ঞা একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকের উপর

নিষেধাজ্ঞা একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকের উপর:

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রক একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক সামগ্রী বিক্রি ও ব্যবহার, প্রস্তুত, মজুত, বন্টন ও আমদানির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে ২০২১ সালের ১২ অগাস্ট প্লাস্টিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সংশোধনী আইন, ২০২১ জারি করে।…

More

শিশুদের সাইবার অপরাধ প্রতিরোধে ব্যবস্থা

459000 views

শিশুদের সাইবার অপরাধ

শিশুদের ওপর সামাজিক মাধ্যমে পর্ণগ্রাফির উদ্বেগজনক প্রভাব যা সমাজের সর্বস্তরেই পরিব্যাপ্ত তা নিয়ে রাজ্যসভার অ্যাডহক কমিটির সমীক্ষা রিপোর্টের ভিত্তিতে ইলেক্ট্রনিক্স এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক (এমইআইটিওয়াই) থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী সরকার তথ্যপ্রযুক্তি (অন্তরবর্তী নির্দেশিকা এবং ডিজিটাল মাধ্যম এথিক্স কোড)আইন ২০২১ বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে-

১. সময় বেঁধে অভিযোগের দ্রুত নিষ্পত্তি করতে মধ্যস্থতাকারীদের অভিযোগ প্রতিকারে সক্রিয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

২. বাচ্চাদের ক্ষেত্রে ক্ষতিকারক এবং আইন সঙ্গত নয় এই জাতীয় কোনো রকম তথ্য প্রকাশ, পরিবেশন, সম্প্রচার বা সে জাতীয় চিত্র বা তথ্যের আপলোড বা তার পুনর্বিন্যাসে বাধা দিতে মধ্যস্থতাকারীদেরকে বিভিন্ন শর্তাবলী প্রদান করতে হবে।

৩. এই জাতীয় তথ্য বা চিত্র যেসব জায়গা থেকে প্রথম উদ্ভুত হচ্ছে তা চিহ্নিত করে  ম্যাসেজ মারফত সামাজিক মাধ্যমে মধ্যস্থতাকারীদেরকে জানাতে বলা হয়েছে।

৪. শিশু যৌন নির্যাতনমূলক উপাদানগুলিকে চিহ্নিত করতে সামাজিক মাধ্যমের মধ্যস্থতাকারীদেরকে উপযুক্ত প্রযুক্তিগত পরিকাঠামো তৈরির ব্যবস্থা নিতে হবে।

এই সাইবার অপরাধ যা বিশেষত শিশুদের যুক্ত করছে তা প্রতিরোধে সার্বিক এবং সুনির্দিষ্ট ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য তথ্য সুরক্ষা শিক্ষা এবং সচেতনতা (আইএসইএ) ব্যবস্থা নিতে এমইআইটিওয়াই সচেতনতামূলক প্রচার কর্মসূচী হাতে নিয়েছে। নীতি-নির্দেশিকা সুনির্দিষ্ট করা হয়েছে এবং ইন্টারনেট ব্যবহার করে কোনো রকম বিকৃত তথ্য বা ভুয়ো খবর যাতে পরিবেশন না করা হয় তার উল্লেখ করা হয়েছে। তথ্য সুরক্ষা সচেতনতামূলক একটি ওয়েবসাইট (https://www.infosecawareness.in) এ ব্যাপারে যাবতীয় প্রাসঙ্গিক তথ্য পরিবেশন করবে।

শিশুদের যৌন নির্যাতন থেকে সুরক্ষিত রাখতে (পসকো)আইন ২০১২কে ২০১৯ সালে সংশোধন করা হয়েছে। এতে শাস্তি আরও অনেক বেশি কঠোর করার সংস্থান রাখা হয়েছে। এই সংশোধনে শিশু পর্ণচিত্রের সংজ্ঞাকে ২(ডিএ) ধারায় রাখা হয়েছে। এই আইনের ১৪ নম্বর ধারাকে সংশোধন করে শিশুদেরকে পর্ণ ক্ষেত্রে ব্যবহারের শাস্তি কঠোর করা হয়েছে। এছাড়াও ১৫ ধারার সংশোধনে ফলে পর্ণচিত্র সংক্রান্ত উপাদান সামগ্রী যাতে শিশুদের যুক্ত করা হচ্ছে তার মজুত এবং ব্যবহারের ক্ষেত্রে কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। এগুলির ক্ষেত্রে আদালতে সাক্ষ্যপ্রমাণ পেশে সুনির্দিষ্ট সময় ছাড়া অন্য কোন সময় প্রচার এবং প্রসারের ক্ষেত্রে বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

পসকো আইন ২০২০তে বলা হয়েছে এক্ষেত্রে যাবতীয় সচেতনতামূলক প্রচার বিজ্ঞপ্তি পঞ্চায়েত ভবন, কমিনিউটি সেন্টার, স্কুল-কলেজ, বাস টার্মিনাল, রেলওয়ে স্টেশন, জনবহুল এলাকা, বিমানবন্দর, ট্যাক্সি স্ট্যান্ড, সিনেমা হল সহ সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ জায়গাতে দিতে হবে এছাড়াও ভার্চুয়াল মাধ্যম, ইন্টারনেট এবং সোশ্যাল মাধ্যমেও তার প্রচার করতে হবে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকও শিশু এবং মহিলাদের সাইবার ক্রাইম প্রতিরোধ (সিসিপিডাব্লুসি)একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে। ২১৩.১৯ কোটি টাকার নির্ভয়া তহবিলের অধীন এই প্রকল্প। এতে রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে সাইবার ফরেন্সিক এবং প্রশিক্ষণ ল্যাবোরেটরি তৈরিতে অর্থ প্রদান, জুনিয়ার সাইবার কনসালটেন্ট নিয়োগ এবং ল-এনফোর্সমেন্ট এজেন্সিগুলির তদন্তকারী, প্রসিকিউটার এবং জুডিশিয়াল অফিসার নিয়োগের অর্থ সাহায্য প্রদান করা হবে। ২৮টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল এই সাইবার ফরেন্সিক ট্রেনিং ল্যাবোরেটরি তৈরি করেছে এবং ১৯ হাজারেরও বেশি পুলিশকর্মী, প্রসিকিউটার এবং জুডিশিয়াল অফিসার প্রশিক্ষণ পেয়েছেন।

রাজ্যসভায় আজ এক লিখিত জবাবে এই তথ্য জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় নারী ও শিশ কল্যাণ মন্ত্রী শ্রীমতী স্মৃতি যুবিন ইরানী।


 

লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি তৈরির প্রযুক্তিতে এআরসিআই চুক্তি স্বাক্ষর করেছে

59184 views

লিথিয়াম- আয়ন ব্যাটারি তৈরির জন্য একটি ফেব্রিকেশন ল্যাবরেটরি খুব শীঘ্রই ব্যাঙ্গালুরুতে স্থাপন করা হবে যাতে প্রযুক্তির আপ- স্কেলিং এবং বাণিজ্যিকীকরণ বাড়ানো সম্ভব হয়।

ভারত সরকারের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের অধীন স্ব-শাসিত সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল অ্যাডভান্সড রিসার্চ সেন্টার ফর পাউডার মেটালার্জি এন্ড নিউ মেটিরিয়ালস, এআরসিআই এবং বেঙ্গালুরুর এনসিওর রিলায়েবল পাওয়ার সলিউশনস, প্রযুক্তি হস্তান্তরের জন্য একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। এর পাশাপাশি, গত ২৫ নভেম্বর লি- আয়ন ব্যাটারি ফেব্রিকেশন ল্যাবরেটরি স্থাপনের জন্য কর্মীদের প্রশিক্ষণ দিয়েছে।
লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি
এই লি- আয়ন ব্যাটারি তৈরির জন্য দক্ষতার ওপর ভিত্তি করে জ্ঞানের হস্তান্তর করা হবে। এছাড়া, বৈদ্যুতিক স্কুটার ও সৌরচালিত রাস্তার আলোর ক্ষেত্রে এর সফল প্রদর্শনের ওপর ভিত্তি করে সেন্টার ফর অটোমোটিভ এনার্জি ম্যাটেরিয়ালস আত্মনির্ভর ভারত অভিযানের অংশ হিসেবে এটি গড়ে তুলবে।
এআরসিআইএ’র পরিচালন পর্ষদের চেয়ারম্যান ডক্টর অনিল কাকোদকার বলেছেন, তাঁদের সঙ্গে এনসিওর রিলায়েবল পাওয়ার সলিউশন এর এই যৌথ উদ্যোগ একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলস্টোন হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে। তিনি দেশীয় প্রযুক্তির বিকাশের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্ব দেন। এই ধরনের চুক্তি দেশে একটি রোল মডেল হতে পারে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
এআরসিআই’য়ের অধিকর্তা ডক্টর টাটা নরসিংহ রাও বলেন যে, ভারতে দেশীয়ভাবে এই ধরনের প্রযুক্তির বিকাশ হলে আমদানির ওপর নির্ভরতা একেবারে কমে যাবে।
এনসিওর রিলায়েবল পাওয়ার সলিউশনস-এর চিফ টেকনোলজি অফিসার ডক্টর জন অ্যালবার্ট জানান যে, লি-আয়ন সেল ম্যানুফ্যাকচারিং প্রযুক্তিতে দুই সংস্থার মধ্যে এই যৌথ অংশীদারিত্ব একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।


ভারত বাংলাদেশ প্রোটোকল জলপথ ব্যবহার

256607 views

ভারত বাংলাদেশ প্রোটোকল জলপথ ব্যবহার করে হলদিয়া থেকে পান্ডু পর্যন্ত প্রথম পণ্যবাহী জাহাজ চলাচলের সূচনা হয়েছে

পিএম গতিশক্তি, ন্যাশনাল মাস্টার প্ল্যানের উদ্যোগের অঙ্গ হিসেবে বন্দর, জাহাজ চলাচল, জলপথ ও আয়ুশ মন্ত্রী শ্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল আজ কলকাতার শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী বন্দরের হলদিয়া ডক কমপ্লেক্স থেকে পান্ডুর উদ্দেশ্যে পণ্যবাহী জাহাজ চলাচলের সূচনা করেছেন।

ভারত বাংলাদেশ প্রোটোকল জলপথ

প্রথম পণ্যবাহী জাহাজে ইস্পাত পাঠানো হয়েছে। জাহাজটির জাতীয় জলপথ – ১ ও ২ ছাড়াও ভারত – বাংলাদেশ প্রোটোকল জলপথ ব্যবহার করবে। অনুষ্ঠানে বন্দর, জাহাজ চলাচল ও জলপথ দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী শ্রী শান্তনু ঠাকুর উপস্থিত ছিলেন।

জাহাজটি পান্ডু থেকে ফেরার সময় কয়লা নিয়ে আসবে। এই উদ্যোগের ফলে উত্তর পূর্বাঞ্চলে ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে এবং ভারত আত্মনির্ভরতার পথে আরো একধাপ অগ্রসর হবে। অভ্যন্তরীণ জলপথ এবং ভারত – বাংলাদেশ প্রোটোকল জলপথ ব্যবহারের মাধ্যমে পণ্য পরিবহণের ক্ষেত্রে ব্যয় সাশ্রয় হবে এবং এটি একটি পরিবেশবান্ধব উদ্যোগ হিসেবে বিবেচিত হবে। এর ফলে সমগ্র ভারত বিশেষত এই অঞ্চল যথেষ্ট উপকৃত হবে।

একইসঙ্গে এদিন কলকাতার শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী বন্দরের সঙ্গে মেসার্স বহ্মপুত্র ক্র্যাকার অ্যান্ড পলিমার লিমিটেড (বিসিপিএল) –এর মধ্যে একটি সমঝোতাপত্র স্বাক্ষরিত হয়েছে। এর ফলে হলদিয়া থেকে বিসিপিএল –এর ডিব্রুগড়ের কাছে লেপেটকাটায় বিসিপিএল –এর পণ্য পরিবহণে সুবিধা হবে। সমঝোতাপত্রটি শ্রী সোনোয়াল ও শ্রী ঠাকুরের উপস্থিতিতে স্বাক্ষরিত হয়েছে। শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী বন্দরের চেয়ারম্যান শ্রী বিনীত কুমার অনুষ্ঠানে পৌরোহিত্য করেন। অনুষ্ঠানে মন্ত্রকের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা, বিসিপিএল ও টাটা স্টিলের পদস্থ আধিকারিকরা এবং স্থানীয় বিধায়ক শ্রীমতী তপতী মন্ডল উপস্থিত ছিলেন।


 

ইন্ডিয়ান অয়েলের চেয়ারম্যান এখন ওয়ার্ল্ড এলপিজি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি

357288 views

ইন্ডিয়ান অয়েলের চেয়ারম্যান ওয়ার্ল্ড এলপিজি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন:

ওয়ার্ল্ড এলপিজি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি
চেয়ারম্যান শ্রী এস এম বৈদ্য ওয়ার্ল্ড এলপিজি অ্যাসোসিয়েশনের (ডাব্লিউএলপিজিএ) সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। দুবাইতে চলতি ওয়ার্ল্ড এলপিজি ফোরাম-২০২১ –এর সভার তিনি সভাপতি নির্বাচিত হন।
ডাব্লিউএলপিজিএ-এর সদর দফতর হলো প্যারিসে। ১২৫টিরও বেশি দেশে এই সংস্থা কাজ করে থাকে। এখানে ৩০০ জনেরও বেশি সদস্য রয়েছেন। এই সংস্থার প্রাথমিক লক্ষ্যই হলো এলপিজি-র জন্য যথাযথ চাহিদা পূরণের মাধ্যমে এক্ষেত্রে মূল্য সংযোজনের সঙ্গে নিরাপত্তার দিকটিকে তুলে ধরা। ডাব্লিউএলপিজিএ-এর পরিচালন পর্ষদ পরিচালিত হয় শিল্প সংস্থা এবং বোর্ড অফ ডিরেক্টর-এর মাধ্যমে।

ডাব্লিউএলপিজিএ পরিচালন পর্ষদে একজন সভাপতি, একজন প্রথম সহ সভাপতি, একজন কোষাধ্যক্ষ, তিনজন সহ সভাপতি এবং ৫ জন অন্যান্য সদস্য থাকেন। ইন্ডিয়ান অয়েল ওয়ার্ল্ড এলপিজি অ্যাসোসিয়েশনের একটি – ‘এ’ শ্রেণীভুক্ত সদস্য সংস্থা।
ডাব্লিউএলপিজিএ-এর সভাপতি হিসেবে নিয়োগের বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে শ্রী বৈদ্য জানান, এলপিজি-র ক্রমবর্ধমান সাফল্যের স্বাক্ষর বিশ্বজুড়ে লক্ষ লক্ষ মানুষের জীবনকে বদলে দিয়েছে। ভারত যেহেতু দ্রুত শক্তি পরিবর্তনের দেশ হিসেবে এগিয়ে যেতে প্রস্তুত, তাই এই স্বচ্ছ জ্বালানির কৌশল বিশ্বের অন্যান্য দেশকে এবিষয়ে অগ্রসর হতে  উৎসাহিত করবে। তিনি আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে জানান যে, আগামী দিনে ওয়ার্ল্ড এলপিজি অ্যাসোসিয়েশন সমগ্র বিশ্বের জন্য একটি সুস্থায়ী এবং সবুজ শক্তির ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করবে। এক্ষেত্রে ভারতের অবদান অনস্বীকার্য হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

 


 

error: Content is protected !!